শুধুই ফেসবুক প্রোফাইল/ওয়াল পোষ্ট দেখে কাউকে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়া মেন্টাল ও ইন্টেলেকচুয়াল অপরিপক্বতার নমুনা এবং চূড়ান্ত বোকামী। কারও কয়েকটা পোষ্ট পড়েই যদি মনে হয় “আমার জন্য এর চাইতে পারফেক্ট দুনিয়ায় আর কেউ নাই” কিংবা “এতদিন ধরেতো এরেই খুঁজতেছি” তাহলে বুঝতে হবে দ্বীনের মৌলিক বুঝ থেকে আমরা অনেক দূরে আছি যদিও আমাদের শত শত ইসলামিক কোর্স করা থাকে। বিয়ে শুধুই হালাল ডেটিং না বরং দ্বীনের অর্ধেক। বাকি অর্ধেক স্বামী-স্ত্রী একে অপরেরটা পূরণ করার চেষ্টা করবে। তাই এত বড় একটা আমানাহকে শুধুই অনলাইনের ভিত্তিতে যাচাই করা বোকামির পরিচয়।

ইয়াওয়ার বেগ যথার্থ বলেছেন- “ইন্টারনেটে কারও প্রোফাইল দেখে কাউকে বিয়ে করাকে তুলনা করা যায় ‘রাশিয়ান রুলেট’ নামক জুয়া খেলার সাথেঃ যে খেলায় পিস্তলের ছয়টি চেম্বারের যেকোন একটাতে বুলেট থাকে… …জীবনসঙ্গী বা জীবনসঙ্গীনীর ব্যাপারে যথেষ্ট খোঁজখবর না নিয়ে তাকে বিয়ে করতে যাবেন না। সম্ভাব্য জীবনসঙ্গীর ব্যাপারে খোঁজখবর নেওয়ার এবং বিয়ের আগে মাহরামের উপস্থিতিতে সাক্ষাৎ করার অনুমোদন ইসলাম আপনাকে দিয়েছে যাতে করে বিয়ের আগে সবকিছু ভালোভাবে জেনে নিতে পারেন।”

শয়তানের সকল ফাঁদ থেকে আমরা আল্লাহর আশ্রয় প্রার্থনা করি।

১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০১৪